Let's Discuss!

দৈনন্দিন বিজ্ঞান বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান
#2489
১। মানুষের দুধের দাঁতের সংখ্যা কত?
উঃ ২০টি।
২। পূর্ণ বয়স্ক মানুষের দাঁতের সংখ্যা কত?
উঃ ৩২টি।
৩। দেহের সবচেয়ে কঠিন অংশের নাম কি?
উঃ দাঁতের এনামেল।
৪। পাকস্থলী থেকে নিঃসৃত রসের নাম কি?
উঃ পাচক রস।
৫। পাকস্থলীতে কোন এসিড থাকে?
উঃ হাইড্রোক্লোরিক এসিড।
৬। পাচক রসে উপাদানগুলো নিঃসৃত হয় কোন কোষ থেকে?
উঃ পাচক রসের উপাদানগুলোর উৎস
প্যারাইটাল কোষঃ হাইড্রোক্লোরিক এসিড
চিফ কোষঃ পেপসিনোজেন।
৭। পাকস্থলীতে HCI এসিডের কাজ কি?
উঃ রোগ জীবাণু ধ্বংস করা।
৮। পেপটিক আলসার কি?
উঃ এক ধরনের রোগ যাতে পাকস্থলী বা ক্ষুদ্রান্তে ঘা হয়।
৯। কোন পরীক্ষা দ্বারা পেপটিক আলসার রোগ নির্ণয় করা হয়?
উঃ এন্ডোসকপি।
১০। কোন জারক রস পাকস্থলীতে দুগ্ধ জমাট বাধায়?
উঃ রেনিন।
১১। ক্ষুদ্রান্ত্র (Small intestine) এর দৈর্ঘ্য কত?
উঃ ৬-৭ মিটার।
১২। বৃহদ্রান্ত এর দৈর্ঘ্য কত?
উঃ ২ মিটার।
১৩। এনজাইম কি?
উঃ এক ধরনের প্রোটিন যা জীবদেহে অল্প পরিমান বিদ্যমান থেকে বিক্রিয়ার হারকে ত্বরান্বিত করে, কিন্তু বিক্রিয়ার পর নিজেরা অপরিবর্তিত থাকে।
১৪। কার্বহাইড্রেট বা শর্করা পরিপাককারী এনজাইমগুলোর নাম লিখ।
উঃ কার্বহাইড্রেট পরিপাককারী এনজাইমের নাম নিম্নে দেওয়া হলঃ
লালা রসেঃ টায়ালিন ও মল্টেজ।
পাচক রসেঃ কার্বহাইড্রেট পরিপাককারী কোন এনজাইম নেই।
অগ্নাশয় রসেঃ অ্যামাইলেজ ও মল্টেজ।
আন্ত্রিক রসেঃ অ্যামাইলেজ, মল্টেজ, সুক্রেজ, ল্যাকটেজ ইত্যাদি।
১৫। আমিষ (Protein) পরিপাককারী এনজাইমগুলোর নাম লিখ।
উঃ আমিষ পরিপাককারী এনজাইমের নাম নিম্নে দেওয়া হলঃ
লালা রসেঃ আমিষ পরিপাককারী কোন এনজাইম নেই।
পাচক রসেঃ পেপসিন, জিলেটিনেজ।
অগ্নাশয় রসেঃ ট্রিপসিন, কাইমোট্রিপসিন, কার্বক্সিপেপটাইডেজ, ইলাস্টেজ।
অন্ত্রিক রসেঃ অ্যামাইনো পেপটাইডেজ, ডাই ও ট্রাই পেপটাডেহ প্রভৃতি।
১৬। লিপিড বা স্নেহ জাতীয় খাদ্য পরিপাককারী এনজাইমগুলোর নাম লিখ।
উঃ লিপিড বা স্নেহ জাতীয় খাদ্য পরিপাককারী এনজাইমের নাম নিম্নে দেওয়া হরঃ
লালারসেঃ চর্বি পরিপাককারী কোন এনজাইম নেই
পাচকরসেঃ পাকস্থলীয় লাইপেজ,
অগ্নাশয় রসঃ অগ্নাশয় লাইপেজ, ফসফোলাইপেজ ও কোলেস্টেরল এস্টারেজ
আন্ত্রিক রসেঃ আন্ত্রিক লাইপেপেজ, লেসিথিনেজ ইত্যাদি।
১৭। শর্করা, আমিষ এবং স্নেহজাতীয় খাদ্যের পরিপাক কোথায় শুরু হয়?
উঃ শর্করা জাতীয় খাদ্যের পরিপাক শুরু হয় মুখে; আমিষ ও স্নেহজাতীয় খাদ্যের পরিপাক শুরু হয় পাকস্থলিতে।
১৮। কার্বহাইড্রেট পরিপাকের ফলে কি উৎপন্ন হয়?
উঃ গ্লুকোজ, ফ্রুকটোজ, গ্যালোকটোজ।
১৯। আমিষ পরিপাকের ফলে কি উৎপন্ন হয়?
উঃ অ্যামাইনো এসিড ও ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পেপটাইড।
২০। চর্বি বা লিপিড পরিপাকের ফলে কি উৎপন্ন হয়?
উঃ ফ্যাটি এসিড, ২-মনোগ্লিসারাইড।
২১। পিত্ত (bile) কোথায় তৈরী হয়?
উঃ যকৃত।
২২। পিত্ত কোথায় জমা থাকে?
উঃ পিত্তথলিতে।
২৩। পিত্তের কাজ কি?
উঃ স্নেহ জাতীয় পদার্থকে ভেঙ্গে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টুকরায় পরিণত করে। ফলে স্নেহজাতীয় পদার্থ অন্ত্র দ্বারা শোষিত হয়।
২৪। পিত্তের বর্ণের জন্য দায়ী কে?
উঃ বিলিরুবিন।
২৫। বিলিরুবিন কোথায় তৈরি হয়?
উঃ প্লীহায়(Spleen).
২৬। কোন রক্ত কণিকা ভেঙ্গে বিলিরুবিন উৎপন্ন হয়?
উঃ লোহিত রক্ত কণিকা।
২৭। রক্তে বিলিরুবিনের স্বাভাবিক মাত্রা কত?
উঃ ০.২-০.৮ মিঃগ্রাঃ/ডেসিলিটার।
২৮। বিলিরুবিনের সাথে যকৃতের সম্পর্ক কি?
উঃ যকৃতে বিলিরুবিনের কনজুগেশন হয়।
২৯। রক্তে বিলিরুবিনের মাত্রা বেড়ে গেলে তাকে কি বলে?
উঃ জন্ডিস বা পাণ্ডুরোগ।
৩০। জন্ডিস রোগে দেহের কোন অংশ আক্রান্ত হয়?
উঃ যকৃত।

প্রথম আলো থেকে সংগৃহীত ##দেশ# ১) ২০০০ থেকে ২০১৮ স[…]

১. বাংলাসাহিত্য কত বছর ধরে রচিত হচ্ছে? - হাজার বছে[…]

৩০১ যে নারীর হাসি সুন্দর সুস্মিতা ৩০২ যে পরের গুণে[…]

২৫১ যে অগ্র-পশ্চাৎ চিন্তা না-করে কাজ করে অবিমৃশ্যক[…]