Let's Discuss!

বিষয় ভিত্তিক প্রস্তুতি : বাংলা ভাষা ও সাহিত্য
#2831
সাহিত্য সম্রাট #বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় (1838 -1894)
• বাংলা উপন্যাসের জনক।
• বাংলার স্কট বলা হয়।
• ত্রয়ী উপন্যাস: আনন্দমঠ ; দেবী চৌধুরানী ;সীতারাম।(আদেসী)
উপন্যাস:
রাজ সিংহের একমাত্র পুত্র চন্দ্রশেখর। পিতার মৃত্যুর পরে চন্দ্রশেখর জমিদারি দেখাশোনা করে। চন্দ্রশেখরকে মা দেবী- সীতা -চৌধুরানী( দেবী-চৌধুরানী) একপ্রকার জোর করে বালিকা ইন্দিরার সাথে বিবাহ দিলেন। ইন্দিরা রূপে-গুণে সাক্ষাৎ লক্ষ্মী। চন্দ্রশেখর ইন্দিরার রূপ-লাবণ্য যৌবন বানে সহজে আকৃষ্ট হলেও মনের মধ্যে যে উদাসীনতা ছিল তা ইন্দিরা দূর করতে পারেনি। তবে সকলে বলে বেড়ায় তারা দুজন যুগলাঙ্গুলী( যুগলাঙ্গুলীয়)।
এদিকে পুত্রের উপর অভিমান করে দেবী- সীতা – চৌধুরানী। দেবী- সীতা -চৌধুরানী সীতারাম আনন্দমঠ এসেছেন। এটি যদিও তাদের পুরনো জমিদারি। তবে এখানে তেমন আসা হয় না। এটি দেখাশোনা করতো রাজমহন। রাজমহন গতবছর দেহ দেখেছেন। তাই রাজমহলের স্ত্রী রজনী(Rajmohol's Wife( প্রথম উপন্যাস ইংরেজিতে) আনন্দমঠ বাড়ি দেখাশোনা করে।
রজনীর মা মৃণালিনী দেবী ছিলেন দেবী -চৌধুরানীর বাল্য সখা। তাদের ইচ্ছা ছিল চন্দ্রশেখর ও ইন্দিরাকে বিয়ে দিয়ে বন্ধুত্বটা আরও নিবিড় করবে। কিন্তু মৃণালিনী স্বর্গলোকে যাওয়ার পর তাদের সাথে তেমন আর যোগাযোগ করা হয়ে ওঠেনি। পরে অবশ্য জানতে পেরেছেন আনন্দমঠ বাড়ির কেয়ারটেকার রাজমহন রজনীর স্বামী। তাই মায়ের সখা হিসেবে সেই- দায়িত্ব পালনের নিমিত্তে রানী যেমন রজনীকে পেয়ে খুশি তেমনি রজনীও খুশি।
দেবী চৌধুরানী রজনীকে রাধা নগরে( রাধারানী) নিয়ে এলেন। ইন্দিরা রজনীকে পেয়ে ভীষণ খুশি হলেন। খুব অল্প দিনে তাদের মধ্যে গড়ে ওঠা সখ্যতা বালির বাঁধের মতো ভেঙে গেল। এখন ইন্দিরা রজনীকে বিষবৃক্ষ মনে করে। কেননা চন্দ্রশেখর বিদুষী রজনীর প্রেমে তন্ময়। স্বামীর সাথে সখ্যতা কি কপাল পুড়লো? ( কপালকুণ্ডলা)। বিদুষী রজনী ইন্দিরার মনের ইচ্ছা জানতে পেরে কাউকে না জানিয়ে আত্মসম্মান নিয়ে অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে পা বাড়ায়। যাওয়ার পূর্বে রজনী তার পিতা কৃষ্ণকান্ত য়ে উইল করে তাকে যেসব সম্পত্তি দিয়েছিলেন সেই সব সম্পত্তি সমর্পণ করে বিদায় নেয় আর কখনো ফিরে আসেনি।(কৃষ্ণকান্তের উইল)
 রাজমহল ওয়াইফ: বঙ্কিমচন্দ্রের প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস ইংরেজি ভাষায়।
 দুর্গেশ নন্দিনী: বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস
 কৃষ্ণকান্তের উইল:
 বিষবৃক্ষ:
 কপালকুণ্ডলা: বাংলা সাহিত্যের প্রথম রোমান্টিক উপন্যাস
 আনন্দমঠ
 দেবী চৌধুরানী
 ইন্দিরা
 মৃণালিনী
 রাধারানী
 যুগলাঙ্গুরীয়
 সীতারাম
 চন্দ্রশেখর
 রাজ সিংহ

সংগৃহীত

প্রথম আলো থেকে সংগৃহীত ##দেশ# ১) ২০০০ থেকে ২০১৮ স[…]

১. বাংলাসাহিত্য কত বছর ধরে রচিত হচ্ছে? - হাজার বছে[…]

৩০১ যে নারীর হাসি সুন্দর সুস্মিতা ৩০২ যে পরের গুণে[…]

২৫১ যে অগ্র-পশ্চাৎ চিন্তা না-করে কাজ করে অবিমৃশ্যক[…]