Let's Discuss!

সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক বিস্তারিত তথ্য
#3316
২০ জুলাই ২০২০ মহাবিশ্বের এযাবৎকালের বৃহত্তম মানচিত্র প্রকাশ করেন বিজ্ঞানীদের একটি দল। এটি দ্বারা মহাবিশ্বের চার মিলিয়নের বেশি ছায়াপথ ও কোয়াসার (মহাবিশ্বের উচ্চমাত্রার উজ্জল আলোক প্রদর্শিত তড়িৎচৌম্বক শক্তির উৎস) এবং মহাবিশ্বের ১১বিলিয়ন বছরের ইতিহাস সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। Sloan Digital sky survey (SDSS) নামক জরিপ পরিচালনাকারী বিশ্বের ৩০টি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০০ জন জ্যোতির্পদার্থ বিজ্ঞানীর সম্মলিত প্রচেষ্টায় Extended Baryon oscillation spectroscopic survey (eBOSS) নামে মানচিত্রটি প্রকাশ করে । ছয় বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ মেক্সিকোর একটি অপটিক্যাল টেলিস্কোপের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্য হতে এটি তৈরি করা হয়। বিজ্ঞান সাময়িকি লাইভ সায়েন্স-এ প্রকাশিত এ গবেষণাটি ইউটা বিশ্ব বিদ্যালয়ের মহাবিশ্বতত্ত্ববিদ কাইল ডাওসন-এর নেতৃত্বে পরিচালিত হয়।
শুক্রে ৩৭টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি
১৯৯০ সালের পর থেকে মোট ১৩৩টি আগ্নেয়গিরির সন্ধান পাওয়া যায় শুক্রে। এর মধ্যে এখন ৩৭টি সক্রিয় রয়েছে বলে জানায় বিশেষজ্ঞরা। বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি দাবি করেন, শুক্রে অবস্থিত এ আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্যুৎপাতের ফলে শুক্রের মাটিতে গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এমনকি এ আগ্নেয়গিরিতে বিস্ফোরনের ফলে অগ্যুৎপাত ও ভূমিকম্পও দেখা দিয়েছে। আগ্নেয়গিরিগুলোর বেশিরভাগই গ্রহটির দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থিত। এর মধ্যে যেটি সবচেয়ে বড়, সেটি আকারে ২১০০ কিমি ব্যাসবিশিষ্ট।
নাসার ছবিতে নতুনরূপে শনি
যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার হাবল মহাকাশ টেলিস্কোপ সম্প্রতি শনি গ্রহের মৌসুম পরিবর্তনের ছবি ধারণ করে। সে ছবিতে নতুনরূপে ধরা দেয়নি শনি। ছবিতে শনি গ্রহের বেশ পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। বিশেষ করে গ্রহটির উত্তর গোলার্ধ কিছুটা লাল রং ধারণ করেছে। শনির বলয়ও স্পষ্ট ফুটে উঠেছে ছবিতে। এ বলয়ে রয়েছে ছোট বড় অসংখ্য বরফখন্ড ও গ্যাস। নাসার প্রকাশিত ছবিতে বলয়ের বাইরের ডান দিকে ‘এনসালাডাস’ ও নিচে ‘মাইমাস’ নামে দুটি উপগ্রহ দেখা যাচ্ছে। শনির আবিষ্কৃত মোট উপগ্রহ ৮২টি। এর মধ্যে ৫৩টির নাম প্রকাশিত হয়েছে।
মঙ্গলে নদী নয়, আছে বরফের স্তর
৩০ জুলাই ২০২০ মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার পাঠানো Perseuerance Rover লাল গ্রহ মঙ্গলের যেখানে অবতারণ করবে সেই জেজেরো ক্রেটারে এক সময় বয়ে যেত বড় বড় নদী – এমনটাই ধারণা মহাকাশবিজ্ঞানীদের । নাসার কিউরিওসিটি রোভারের পাঠানো ছবি দেখে বিজ্ঞানীরা বলেন, প্রায় ৪০০ কোটি বছর আগে মঙ্গলের উত্তর গোলার্ধে ‘অ্যারাবিয়া টেরায়’ দীর্ঘ এলাকা জুড়ে বয়ে যেত প্রায় ১৭,০০০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ঐ নদী। তবে ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার বিজ্ঞানীরা দাবি করেন, মঙ্গলের পিঠে জমে আছে বরফের চাই। মাথাতুলে দাড়িয়ে আছে বরফের বিশাল পাহাড়। এরই নিচে অন্ত:সলিলা হয়ে আছে জলস্রোত। তাতেই বোঝা গেছে, নদী নয়, বরফের স্তর রয়েছে লাল গ্রহে। সেই বরফ গলে পানি হচ্ছে । বড় বড় বরফের চাইয়ের নিচে সেই পানি সুপ্ত অবস্থায় আছে। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় নেচার জিওসায়েন্স সাময়িকীতে।
সূর্যের সবচেয়ে কাছ থেকে ছবি
৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ মার্কিন গবেষণা সংস্থা NASA এবং ইউরোপীয় স্পেস এজেন্সির যৌথ উদ্যোগে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরাল এয়ার ফোর্স স্টেশন থেকে উৎক্ষেপণ করা হয় প্রথম সৌর অরবিটার। এটা NASA ও ESA এর যৌথ উদ্যোগে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোলার মিশন । সম্প্রতি এ সৌর অরবিটাল একগুচ্ছ ছবি পাঠিয়েছে। তার মধ্যে এ পর্যন্ত সূর্যের সবচেয়ে কাছের একাধিক ক্লোজআপ ছবিও রয়েছে। উৎক্ষেপনের পর থেকে এ প্রথমবার ছবি পাঠালো সোলার অরবিটাল। সর্বসাধারণের জন্য ঐ ছবি দেখার ব্যবস্থা করে দিয়েছে NASA।
’নবজাতক’ ছায়াপথের সন্ধান
জ্যোর্তিবিজ্ঞানীরা পৃথিবী থেকে ১,২০০ কোটি আলোকবর্ষ দূরে ‘নবজাতক’ ছায়াপথের সোনালি আলোয় ঝলমল বলয় শণাক্ত করেছেন। ১২ আগস্ট ২০২০ তারা এটি ঘোষণা দেন। SPT 0418-47 নামে অভিহিত এ শিশু ছায়াপথ এত দূরে যে সেখান থেকে আলো পৃথিবীতে এসে পৌছাতে কয়েকশ কোটি বছর লেগেছে। এ নবজাতক ছায়াপথের ছবি তখনকার, যখন মহাবিশ্বের বয়স ছিল ১৪০ কোটি বছর । চিলিতে অবস্থিত ব্যাপক ক্ষমতাসম্পন্ন ALMA (Atacama Large Millimeter / Submillimeter Array) রেডিও টেলিস্কোপ গ্রেভিটেশনাল লেন্সিং সিস্টেম ব্যবহার করে এ নবজাতক ছায়াপথের ইমেজ ধারণ করা হয়।
    Similar Topics
    TopicsStatisticsLast post
    0 Replies 
    259 Views
    by rafique
    0 Replies 
    294 Views
    by raja

    ১. ডিজিটাল প্রতারণার সাজা ৫ বছর বা ৫ লক্ষ বা উভয় […]

    ১. বিশ্বে চার ধরনের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা চালু রয়েছে[…]

    ১. ব্রিটিশ আমলে বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা কমিশন গঠিত[…]

    যদি স্বাধীনতা বলতে কিছু বোঝায়, তবে এর অর্থ লোকেরা[…]