Let's Discuss!

সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক বিস্তারিত তথ্য
#2957
১। মুসলিম লীগের দাপ্তরিক ভাষা উর্দু করার প্রস্তাব দেন- মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ।
২। তমদ্দুন মজলিস গঠনে নেতৃত্ব দেন- অধ্যাপক আবুল কাশেম।
৩। সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ পুনর্গঠিত হয়- ১৯৪৮ সালের ২রা মার্চ।
৪। বাংলা ভাষা দাবি দিবস পালিত হয়- ১১ই মার্চ, ১৯৪৮।
৫। মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে ঘোষণা দেন- ২১শে মার্চ।
৬। ভাষা আন্দোলনের সময় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন- খাজা নাজিমুদ্দীন।
৭। নতুনভাবে গঠিত রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক ছিলেন- আবদুল মতিন।
৮। প্রথম শহিদ মিনার উদ্বোধন করা হয়- ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ১৯৫২।
৯। ভাষা আন্দোলনের ওপর রচিত প্রথম কবিতা- ’কাঁদতে আসিনি, ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি’।
১০। পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে বাংলা স্বীকৃতি পায়- ১৯৫৬ সালে।
১১। পাকিস্তানের মোট জনসংখ্যার ৫৬ শতাংশই ছিল- বাঙালি।
১২। পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়- ২৩শে জুন, ১৯৪৭।
১৩। পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি ছিলেন- মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী।
১৪। ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট গঠনের মূল উদ্যোক্তা- আওয়ামী লীগ।
১৫। আওয়ামী মুসলিম লীগের নাম পরিবর্তিত হয়- ১৯৫৫ সালে।
১৬। ১৯৫৪ সালের প্রাদেশিক নির্বাচনে যুক্তফ্রন্টের ইশতেহার ছিল- ২১ দফা।
১৭। শেবে বাংলা এ. কে. ফজলুল হক যুক্তফ্রন্টের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন- ১৯৫৪ সালের ৩রা এপ্রিল।
১৮। যুক্তফ্রন্ট সরকারকে বরখাস্ত করা হয়- ৩০শে মে, ১৯৫৪।
১৯। ১৯৫৪ সালে পাকিস্তানের গভর্নর ছিলেন- গোলাম মোহাম্মদ।
২০। পাকিস্তানের অরাজক শাসনের পর্ব শুরু হয়- পূর্ব বাংলায় সামরিক শাসন শুরুর মাধ্যমে।

    ১. ডিজিটাল প্রতারণার সাজা ৫ বছর বা ৫ লক্ষ বা উভয় […]

    ১. বিশ্বে চার ধরনের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা চালু রয়েছে[…]

    ১. ব্রিটিশ আমলে বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা কমিশন গঠিত[…]

    যদি স্বাধীনতা বলতে কিছু বোঝায়, তবে এর অর্থ লোকেরা[…]