Let's Discuss!

সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক বিস্তারিত তথ্য
#2442
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষদের বেতন ১৩তম গ্রেডে উন্নীত করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। বেতন বৈষম্য দূর করতে এসব শিক্ষকদের বেতন গ্রেড উন্নীত করে ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ একটি আদেশ জারি করা হয়। সহকারী শিক্ষকদের বেতন গ্রেড উন্নীত করা হলেও প্রধান শিক্ষকদের বেতন গ্রেড আগের মতোই রাখা হয়। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকরা ১১তম এবং প্রশিক্ষণবিহীনরা ১২তম গ্রেডে বেতন পাবেন। প্রাথমিকের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা এতদিন ১৪তম এবং প্রশিক্ষণবিহীনরা ১৫তম গ্রেডে বেতন পেয়ে আসছিলেন। আর এখন থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন উভয় শিক্ষকদের বেতন ১৩তম গ্রেডে হবে। আদেশে বলা হয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৯-এর তফসিল [বিধি (২) গ] অনুযায়ী, এদের বেতন গ্রেড উন্নীত করা হয়।
এর আগে ৯ মার্চ ২০১৪ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের পদমর্যাদা তৃতীয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করে সরকার। একই সাথে সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল এক ধাপ উন্নীত করা হয়।

মন্ত্রিসভায় দপ্তর পুনর্বণ্টন
১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ একজন মন্ত্রী ও দুইজন প্রতিমন্ত্রী দপ্তর রদবদল করে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রুলস অব বিজনেস অনুযায়ী, মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীদের এ দায়িত্ব পুনর্বণ্টন করেন।
দপ্তর বদল হওয়া মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা হলেন-
নাম – পদবি – পূর্বের মন্ত্রণালয় – বর্তমান মন্ত্রণালয়
শ ম রেজাউল করিম – মন্ত্রী – গৃহায়ণ ও গণপূর্ত – মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ
মো. আশরাফ আলী খান খসরু – প্রতিমন্ত্রী – মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ – সমাজকল্যাণ
শরীফ আহমেদ – প্রতিমন্ত্রী – সমাজকল্যাণ – গৃহায়ণ ও গণপূর্ত

আমৃত্যু রেশন পাবে পুলিশ
পুলিশ সদস্যদের আজীবন রেশন সুবিধা দিয়ে অর্থ বিভাগ ২৯ জানুয়ারি ২০২০ এক অফিস আদেশ জারি করে। ১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে এ আদেশ কার্যকর হয়। যেসব পুলিশ সদস্য ১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে অবসরে গিয়েছেন তারাও এ সুবিধা পাবেন। অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ পরিবারের সদস্য সংখ্যা দু’জন হিসাব করে ভর্তুকি দামে রেশন দেয়া হবে। প্রতি মাসে তারা ২০ কেজি চল, ২০ কেজি আটা, ২ কেজি চিনি, সাড়ে ৪ লিটার ভোজ্য তেল, ২ কেজি ডাল পাবেন। সন্তানদের ক্ষেত্রে এ সুবিধা ২১ বছর পর্যন্ত প্রযোজ্য। অবিবাহিত, প্রতিবন্ধী সন্তান আজীবন এ সুবিধা পাবেন। কোনো ক্ষেত্রেই পরিবারের সদস্য সংখ্যা দুজনের বেশি হবে না। পরিবারের সদস্য সংখ্যা একজন হলে রেশনের পরিমাণ অর্ধেকে নেমে আসবে। স্বামী-স্ত্রী উভয়ই পুলিশ সদস্য হলে অথবা ভিন্ন ভিন্ন রেঁশন সুবিধা-সংবলিত দপ্তর বা সংস্থায় কর্মরত হলে, তাদের যে কোনো একজন যতদিন কর্মরত থেকে পারিবারিক রেশন বা সুবিধা ভোগ করবেন ততদিন পর্যন্ত তাদের কেউ বা পরিবারের অন্য কোনো সদস্য অবসরকালীন রেশন সুবিধা পাবেন না।
    Similar Topics
    TopicsStatisticsLast post
    0 Replies 
    480 Views
    by Aresantor
    0 Replies 
    442 Views
    by Aresantor
    0 Replies 
    492 Views
    by tarek
    0 Replies 
    364 Views
    by tumpa
    0 Replies 
    406 Views
    by tarek

    নিউয়র্ক পুলিশে বাংলাদেশি কমান্ডার ২৯ জানুয়ারি ২[…]

    ১) ভাষার মূল উপাদান ধ্বনি ২) আভরণ শব্দের অর্থ অল[…]

    ICC’র প্রধান প্রসিকিউটর ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২১[…]