Let's Discuss!

বাংলা ব্যাকরণ বিষয়ক আলোচনা
#6247
১.বস্তুবাচক শব্দ ও প্রাণিবাচক অ-তৎসম শব্দের শেষে ই-কার হবে। যেমন –
বস্তুবাচক শব্দ: বাড়ি, গাড়ি, শাড়ি, চাবি ইত্যাদি।
প্রাণিবাচক শব্দ: মুরগি, পাখি, হাত ইত্যাদি।

২.দেশ, জাতি ও ভাষার নাম লিখতে সর্বদা ই-কার হবে। যেমন –
দেশ – জার্মানি, ইতালি, গ্রিস, চিলি, গিনি, হাইতি, হঙ্গেরী ইত্যাদি।
জাতি – বাঙালি, জার্মানি, পর্তুগিজ, তুর্কি ইত্যাদি।
ভাষা – ইংরেজি, হিন্দি, আরবি, ফারসি, নেপাল ইত্যাদি।

৩.-ইনী, -ঈ, -ঈয়সী, -নী, -বতী, -মতী, -ময়ী অন্ত্য প্রত্যয়যুক্ত স্ত্রীবাচক শব্দের শেষে সর্বদা ঈ-কার হবে। যেমন:
মনোহারিণী, গরীয়সী, যুবতী, তরুণী, কৃপাময়ী, গুণবতী, বুদ্ধিমতী, সর্বময়ী, মানবী, জননী, স্ত্রী, নারী ইত্যাদি।

৪.বিদেশি শব্দের বানান বালায় লেখার সময় ‘ষ’ ও ’ণ’ না হয়ে ‘স’ ও ‘ন’ হবে।
অশুদ্ধ – শুদ্ধ
ষ্টেশন – স্টেশন
ষ্টডিও – স্টডিও
ফটোষ্ট্যাট – ফটোস্ট্যাট
গভর্ণর – গভর্নর
কর্ণার – কর্নার
কর্ণেল – কর্নেল

৫.বানানে যে বর্ণের ওপর রেফ থাকবে সে বর্ণে দ্বিত্ব হবে না। যেমন: -
অশুদ্ধ – শুদ্ধ
কার্য্যালয় – কার্যালয়
নির্দ্দিষ্ট – নির্দিষ্ট
ধর্ম্মসভা – ধর্মসভা
পর্ব্বত – পর্বত
    Similar Topics
    TopicsStatisticsLast post
    0 Replies 
    68 Views
    by Asifjnu
    0 Replies 
    64 Views
    by Asifjnu
    1 Replies 
    84 Views
    by zahangir
    0 Replies 
    122 Views
    by Azizcu1990
    0 Replies 
    127 Views
    by Azizcu1990

    ১.ভূমধ্যসাগরীয় ইউনিয়নের আহ্বায়ক কে? -নিকোলাস সা[…]

    বিমানবন্দর – দেশ হিথ্রো বিমানবন্দর – […]

    ফ্রেঞ্চ ১.লুক্সেমবার্গ ২.বেলজিয়াম ৩.ফ্রান্স ৪[…]