Let's Discuss!

আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান
#3837
ইরাক-ইরান যুদ্ধ
শাত-ইল-আরব জলাধারের মালিকানা নিয়ে ১৯৮০ থেকে ১৯৮৮ সালে ইরাক ও ইরানের মধ্যে এই যুদ্ধ সংগঠিত হয়।
ইরাক-কুয়েত যুদ্ধ বা প্রথম উপসাগরীয় যুদ্ধ
১৯৯০ সালে ইরাক কুয়েত দখল করে এবং কুয়েতকে তার ১৯ তম প্রদেশ হিসেবে ঘোষণা করে। ১৯৯১ সালে মার্কিন বহুজাতিক বাহিনী কুয়েতকে মুক্ত করার জন্য যে যুদ্ধ পরিচালনা করে, তাই প্রথম উপসাগরীয় যুাদ্ধ বা ইরাক-কুয়েত যুদ্ধ নামে পরিচিত। ১৯৯১ সালেই ইরাক জাতিসংঘের শর্ত মেনে নিয়ে কুয়েত থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়। তবে কুয়েতকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয় ১৯৯৪ সালে।
ফকল্যান্ড যুদ্ধ
ফকল্যান্ড যুদ্ধ ছিল আটলান্টিক মহাসাগরে অবস্থিত ব্রিটেনের একটি দ্বীপপুঞ্জ। ১৯৮২ সালে আর্জেন্টিনা এটি দখল করে নিলে ব্রিটেন ও আর্জেন্টিনার মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। যুদ্ধের সময় ইংল্যান্ড এর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মার্গারেট থ্যাচার। যুদ্ধে ব্রিটেন জয়লাভ করে ফকল্যান্ড দ্বীপ পুনর্দখল করে। বর্তমানে এখানে ব্রিটেনের নৌঘাঁটি রয়েছে।
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয় ১৯১৪ সালের ২৮ জুলাই। এই দিন বসনিয়ার রাজধানী সারায়েভো শহরে অস্ট্রিয়ার যুবরাজ ফার্দিনান্দ এক সার্বীয়বাসীর গুলিতে নিহত হলে অস্ট্রিয়া এই হত্যাকান্ডের জন্য সার্বিয়াকে দায়ী করে এবং সার্বিয়ার বিরূদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে। এই যুদ্ধে দুই দেশের বন্ধু রাষ্ট্রগুলো ধীরে ধীরে জড়িয়ে পড়ে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মিত্রশক্তি ছিল সার্বিয়া, রাশিয়া, ব্রিটেন, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও ইতালি এবং অক্ষরশক্তি ছিল জার্মানি, অস্ট্রিয়া, হাঙ্গেরি ও বুলগেরিয়া। এই যুদ্ধে মিত্র বাহিনীর জয় হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মিত্র বাহিনীর সামরিক বাহিনীর প্রধান ছিলেন জেনারেল ফচ। যুক্তরাষ্ট্র প্রথম বিশ্বযুদ্ধে যোগ দেয় ১৯১৭। প্রথম বিশ্বযুদ্ধ আনুষ্ঠানিকভাবে সমাপ্ত হয় ১৯১৮ সালের ১১ নভেম্বর।
প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মিত্রবাহিনীর বিশ্বনেতারা ছিলেন –
-রাশিয়ার জার নিকোলাস।
-ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হার্বার্ট আসকুইথ এবং ডেভিড লয়েড জর্জ ।
-যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন।
-ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ছিলেন রেইমন্ড পয়েনকেয়ার।
প্রথম বিশ্বযুদ্ধে অক্ষ শক্তির নেতারা ছিলেন –
জার্মানের চ্যান্সেলর থিওডর ফ্রেডেরিক আলফ্রেড এবং সম্রাট ছিলেন কাইজার দ্বিতীয় উইলিয়াম। জার্মানির সম্রাটদের বলা হতো কাইজার।
প্রথম বিশ্বযুদ্ধে জার্মানি যুক্তরাষ্ট্রের লুসিতানিয়া জাহাজটি ডুবিয়ে দিলে যুক্তরাষ্ট্র মিত্রবাহিনীর পক্ষে যুদ্ধে যোগ দেয়।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ
১৯৩৯ সালে ১ সেপ্টেম্বর জার্মানি, পোল্যান্ড আক্রমণ করলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয়। এই যুদ্ধে জাপান, জার্মানি ও ইতালি ছিল অক্ষশক্তি এবং ব্রিটেন, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, কানাডা, পোল্যান্ড ইত্যাদি ছিল মিত্রশক্তি। ১৯৪১ সালের ৭ ডিসেম্বর জাপান যুক্তরাষ্ট্র এর নৌঘাটি পার্ল হারবারে বোমা বর্সন করলে যুক্তরাষ্ট্র মিত্রবাহিনীর পক্ষে যুদ্ধে যোগ দেয়। ১৯৪৫ সালের ২ সেপ্টেম্বর জাপান আনুষ্ঠানিকভাবে আত্নসমর্পণ করলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সমাপ্তি হয়।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে মিত্রবাহিনীর বিশ্বনেতারা ছিলেন –
যুক্তরাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী উইন্সটন চার্চিল।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ফ্রাংকলিন ডি রুজভেল্ট ও হ্যারি এস ট্রম্যান।
সোভিয়েত প্রেসিডেন্ট জোসেফ স্টালিন।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অক্ষ শক্তির নেতারা ছিলেন –
জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাডলফ হিটলার।
ইতালির প্রেসিডেন্ট বেনিকো মুসোলিনি।
জাপানের সম্রাট হিরোহিতো।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্রের সমরনায়ক ছিলেন হাওয়ার এবং ব্রিটেনের সমরনায়ক ছিলেন জেনারেল মন্টেগোমারি। মন্টেগোমারি মরুভূমিতে যুদ্ধ করার জন্য ডেজার্ট উপাধি লাভ করেন।
    Similar Topics
    TopicsStatisticsLast post
    0 Replies 
    231 Views
    by tumpa
    0 Replies 
    223 Views
    by tumpa
    0 Replies 
    302 Views
    by Ramishaprome
    0 Replies 
    261 Views
    by Ramishaprome
    0 Replies 
    249 Views
    by Ramishaprome

    বাংলাদেশের জাতীয় দৈনিকের প্রথম নারী সম্পাদক তাসমি[…]

    -দেশের টেলিভিশনে প্রথমবারের মতো একজন ট্রান্সজেন্ডা[…]

    -মুজিববর্ষে ‘গভর্নমেন্ট জব পোর্টাল’ না[…]

    মুক্তিযোদ্ধাদের বীরনিবাস ভূমিহীন ও আসচ্ছল মুক্তিয[…]