Let's Discuss!

আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান
#3482
কমনওয়েলথ অব নেশনস
ইংরেজ শাসন থেকে স্বাধীনতা প্রাপ্ত দেশগুলো কমনওয়েলথের সদস্য। ১৯২৬ সালে ইম্পেরিয়াল সম্মেলনের মধ্য দিয়ে কমনওয়েলথের যাত্রা শুরু হয়। তখন তার নাম ছিল কমনওয়েলথ অব নেশনস। ১৯৩১ সালে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে স্ট্যাচু অব ওয়েস্ট মিনিস্টার নামে একটি আইন অনুমোদিত হয়। এর ফলে কমনওয়েলথ স্বাতন্ত্র মর্যাদা লাভ করে। ১৯৪৯ সালে কমনওয়েলথ থেকে ব্রিটিশ কথাটি বাদ দেয়া হয় এবং কমনওয়েলথ অব নেশনস প্রতিষ্ঠিত হয়।
-কমনওয়েলথের সদর দপ্তর লন্ডনের মার্লবোরো হাউজ।
-কমনওয়েলথের সদস্য সংখ্যা ৫৩।
-আয়তনে কমনওয়েলথের বৃহত্তম দেশ কানাডা এবং ক্ষুদ্রতম দেশ নাওরু এবং জনসংখ্যায় বৃহত্তম দেশ ভারত।
-সর্বশেষ সদস্য গাম্বিয়া ।
-ব্রিটিশ সম্রাজ্যভুক্ত না হয়েও কমনওয়েলথের সদস্য মোজাম্বিক ও রুয়ান্ডা।
-ব্রিটিশ শাসনভুক্ত হয়েও কমনওয়েলথের সদস্য নয় যুক্তরাষ্ট্র, মিয়ানমার, কানাডা, মালদ্বীপ জিম্বাবুয়ে আয়ারল্যান্ড প্রভৃতি।
-ফিজিতে ১৯৮৭ সালে সামরিক শাসন শুরু হওয়ায় সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছিল তবে ১৯৯৭ সালে পুনরায় সদস্য হয়।
-২০১৬ সালে মালদ্বীপ সর্বোশেষ কমনওয়েলথ ত্যাগ করে।
-১৯৫২ সাল থেকে কমনওয়েলথের প্রধান ছিলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ২০১৮ সাল থেকে নতুন প্রধান হলেন তার পুত্র চার্লস।
-কমনওয়েলথের বর্তমান মহাসচিব ব্রিটিশ আইনজীবি তিনি কমনওয়েলথের প্রথম নারী এবং ব্রিটিশ নাগরিক মহাসচিব।
-২১ তম কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশের আবদুল্লাহ হেল বাকি ও শাকিল শুটিংয়ে দুটি রৌপ্য জেতে।
-কমনওয়েলথের দেশগুলোর সংসদীয় ফোরামের নাম সিপিএ।
-২১ তম কমনওয়েলথ গেমস অনুষ্ঠিত হয় অস্ট্রেলিয়ার গোল্ড কোস্টে।
-কমনওয়েলথের ২৪ তম সম্মেলন হয় ২০১৫ সালে মাল্টার এবং সর্বশেষ সম্মেলন হয় ২০১৮ সালে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে। ২০২০ এ হবে রুয়ান্ডার এবং ২২ এ হবে সামোয়াতে।
-প্রতি বছর মার্চ মাসের দ্বিতীয় সোমবার কমনওয়েলথ দিবস পালিত হয়।
-কমনওয়েলথভুক্ত দেশ অস্ট্রেলিয়া যুক্তরাজ্যের রাজা বা রানিকে তাদের রাস্ট্রপ্রধান হিসেবে স্বীকার করে। বর্তমানে কমনওয়েলথভুক্ত ১৬টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান হলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।
-কমনওয়েলথ একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন যার কোনো সংবিধান নেই।
-কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর ডিপ্লোম্যাটিক কর্মকর্তাকে হাইকমিশনার বলা হয়।
-বাংলাদেশ কমনওয়েলথের সদস্য হয় ১৯৭২ সালে।
-বাংলাদেশ কমনওয়েলথের ৩২ তম সদস্য।
-কমনওয়েলথ প্রতিষ্ঠাকালে প্রধান ছিলেন রাজা ষষ্ঠ জর্জ।
আন্তর্জাতিক সেবা সংস্থা
রেড ক্রস: রেড ক্রস দুস্থ মানবতার সেবায় নিয়োজিত আন্তর্জাতিক সংস্থা।
প্রতিষ্ঠাকাল: ১৮৬৩ সাল।
প্রতিষ্ঠাতা: হেনরি ডুনান্ট।
সদর দপ্তর: জেনেভা।
রেড ক্রস দিবস: ৮ মে (হেনরি ডুনান্টের জন্মদিন)
প্রতীক: লাল রঙের ক্রস। মুসলিম বিশ্বে রেড ক্রসের প্রতীক অর্ধাকৃতি চাঁদ।
মুসলিম বিশ্বে রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট নামে পরিচিত।
রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্টের সভাপতি জাপানের তাকাহিকো নাকাও।
রেড ক্রস ১৯১৭, ১৯৪৪, এবং ১৯৬৩ সালে এই তিনবার শান্তিতে নোবেল পুরস্কার লাভ করে।

    -১২ মার্চ ২০২১ জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য জনসন […]

    ফাইজপার ও মডার্নার পর যুক্তরাষ্ট্রের করেনারার তৃতী[…]

    -যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশ হেফাজতে মারা যাওয়া কৃষ্ণাঙ্গ[…]

    -সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষেধ[…]