Let's Discuss!

বাংলাদেশ বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান
#4065
১.বাংলাদেশের প্রধান খাদ্যশস্য কি?
=ধান।
২.ধান কি রকম উদ্ভিদ?
=একবীজপত্রী।
৩.বাংলাদেশের ধানের শ্রেনীভেদ কয়টি?
=৩টি – আউশ, আমন ও বোরো।
৪.বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি উৎপাদিত হয় কোন ধান?
=বোরো ধান।
৫.বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি ধান উৎপাদন হয় কোন জেলায়?
=ময়মনসিংহ জেলায়।
৬.’নারিকা-১’ কি?
=আফ্রিকা থেকে আমদানিকৃত খরাসহিষ্ণু ধান।
৭.দেশের মোট আবাদি জমির কত ভাগ ধান চাষ করা হয়?
=শতকরা ৮০ ভাগে।
৮.পাখি ছাড়া ‘ময়না’ কি?
=উন্নত জাতের ধান।
৯.কোন মাসে রোপা আমন কাটা হয়?
=অগ্রহায়ন – পৌষ মাসে।
১০.আউশ ধান রোপণ করা হয় কখন?
=জুলাই-আগস্ট মাসে।
১১.বাংলাদেশ কবে হাইব্রিড ধান উৎপাদন শুরু হয়েছিল?
=১৯৯৮ সালের ডিসেম্বর থেকে।
১২.বাংলাদেশের ধান উৎপাদনের পরিমাণ কত?
=২.৫ কোটি টন।
১৩.উফশী কি?
=যে কোনো ফসলের উচ্চ ফলনশীল প্রজাতিকে সংক্ষেপে উফশী বলা হয়।
১৪.বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট কবে, কোথায় অবস্থিত?
=১ অক্টোবর ১৯৭০; জয়দেবপুর, গাজীপুর।
১৫.আউশে আবাদযোগ্য প্রথম হাইব্রিড জাতের ধানের নাম কি?
=জিবিকে হাইব্রিড ধান-২।
১৬.পানি বা বণ্যা সহিষ্ণু জাতের ধানের নাম কি?
=ব্রি ধান ৫১ ও ৫২।
১৭.লবণ ও খরা সহনশীল ব্রি ধান ৫৫ কোন জাতের?
=আউশ।
১৮.মঙ্গা মোকাবিলায় বিনা উদ্ভাবিত ধানের জাতের নাম কি?
=বিনা-৭।
১৯.বাংলাদেশের পরমাণূ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃক উদ্ভাবিত লবণাক্ত সহিষ্ণু ধান কি কি?
=বিনা-৮ ও বিনা-৯।
২০.মঙ্গা এলাকার জন্য কোন ধরনের ধান বিখ্যাত?
=বিআর-৩৩।
২১.লবণাক্ত সহনশীল ধানের জাত কোনটি?
=ব্রি ধান ৪৭।
২২.জোয়ার ভাটা অঞ্চলের জন্য উপযুক্ত ধান কোনটি?
=ব্রি ধান ৪৪, ব্রি ধান ৩৩ ও বিআর ১১।
২৩.বন্যা পরবর্তী এলকার জন্য উপযুক্ত ধান কোনটি?
=ব্রি ধান ৪৬।
২৪.জলমগ্ন এলাকায় সহনশীল ধান কোনটি?
=বিআর ১১ আর ১।

    -১২ মার্চ ২০২১ জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য জনসন […]

    ফাইজপার ও মডার্নার পর যুক্তরাষ্ট্রের করেনারার তৃতী[…]

    -যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশ হেফাজতে মারা যাওয়া কৃষ্ণাঙ্গ[…]

    -সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষেধ[…]