Let's Discuss!

বিষয় ভিত্তিক প্রস্তুতি : বাংলদেশ ও বিশ্ব, দৈনন্দিন বিজ্ঞান এবং সাম্প্রতিক ঘটনাবলি
By rekha
#3473
করোনায় সম্ভাবনাময় ওষুধের সন্ধান
আধুনিক কম্পিউটার সিমুলেশনের মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা বিদ্যমান একটি ঔষুধ শনাক্ত করেন। যা করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে। বর্তমানে ওষুধটি বাইপোলার ডিজঅর্ডার ও শ্রবণশক্তি হ্রাস পাওয়া ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। বিজ্ঞানীরা বলেছেন, ঔষধটি করোনা ভাইরাসকে প্রতিলিপি তৈরিতে বাধা দেয়। এ সংক্রান্ত নিবন্ধন সায়েন্স অ্যাডভান্সেস সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়। গবেষকরা বলছেন, এমপ্রো এমন এনজাইম যার কারণে করোনা ভাইরাসের অসংখ্য প্রতিলিপি তৈরির ক্ষমতা বাড়ায়। এর বিরূদ্ধে কার্যকরভাবে কাজ করতে পারে এ ঔষুধ । এ ওষুধ মানুষের ব্যবহারের জন্য নিরাপদ বলে এরই মধ্যে প্রমাণিত হয়েছে।
রক্তের গ্রুপ ও করোনা ভাইরাস
সম্প্রতি এক গবেষণায় রক্তের গ্রুপের সাথে করোনা ভাইরাসের একটি সম্পর্ক রয়েছে বলে ইঙ্গিত মেলে। গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন এ গ্রুপের রক্ত বাহকদের শরীরে করোনার বেশী ভয়াবিহ হয়ে উঠেছে। এ গ্রুপের রক্তবাহকদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি অন্যান্য গ্রুপের রক্তবাহকের চেয়ে ৪৫% বেশী। কিন্তু ’এ’ গ্রুপের রক্তবাহকদের শরীরে করোনা ভাইরাস ততটা ভয়াবহ নয় বলে তারা জানায়। এবি এবং বি রক্তবাহকের শরীরে করোনা ভাইরাস এ গ্রুপের রক্তবাহকের মতো ততটা ভয়াবহ নয়। গবেষণা পত্রটি প্রকাশিত হয় আন্তর্জাতিক চিকিৎসা জার্নাল নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিন এ। নির্দিষ্ট জিন ও ক্রোমোজোমের সাথে রোগীদের দেহে করোনা সংক্রমনের ভয়াবহতা সম্পর্ক রয়েছে বলে জানা যায় এ গবেষণায়।
করোনায় সুরক্ষিত যাত্রী ছাউনি
করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষার জন্য সম্প্রতি করোনা প্রতিরোধী উচ্চপ্রযুক্তির যাত্রী ছাউনী তৈরি করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। সিউলের বাসস্টপে তৈরি এসব ছাউনিতে প্রবেশ করলে বৃষ্টি রোদ ও করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাবে। এতে রয়েছে স্লাইডিং, দরজা, তাপমাত্রা পরীক্ষার যন্ত্র এবং ভাইরাস ধ্বংসকারী ল্যাম্প।
যক্ষ্মার টিকায় করোনা প্রশমন
সম্প্রতি একদল গবেষক দাবি করেন, করোনার ওপর বিসিজি টিকার ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে। নিউইয়র্ক ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির গবেষকদের সাথে যুক্ত ছিলেন বেশ কিছু গবেষকরা । তাদের এ গবেষণার ফল সেল রিপোর্টস মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত হয় ৫ আগষ্ট ২০২০। এ গবেষণায় দেখা যায়, যারা অতীতে বিসিজির টিকা নিয়েছেন, তাদের মধ্যে করোনাজনিত অসুস্থতা যেমন – শ্বাসকষ্ট, প্রদহসহ মুত্যুর হার কমায়। অন্যদিকে যারা কখনো বিসিজিরি টিকা নেয়নি তাদের মধ্যে করোনা জনিত মৃত্যুর হার বেশী।
করোনা গুজবে শত শত মৃত্যু
করোনা ভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্যের গুজবে কান দিয়ে বিশ্বজুড়ে শত শত মানুষের মৃত্যু হয় বলে জানান গবেষকরা। আর এ জন্য দায়ী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো। এখান থেকে পাওয়া ভুল তথ্যের কারণে ডিসেম্বর ২০১৯-এপ্রিল ২০২০ সাল পর্যন্ত প্রায় ৫,৮০০ মানুষকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। এর মধ্যে প্রাণ হারায় কমপক্ষে ৮০০ জন। সম্প্রতি আমেরিকান জার্নাল অব ট্রপিক্যাল মেডিসিন এন্ড হাইজিনের গবেষণার এসব তথ্য উঠে আসে। বিজ্ঞানীরা ৮৭ টি দেশের ২৫ টি ভাষার মোট ২,৩০০ টি রিপোর্ট নিয়ে গবেষণাটি করেন।
    Similar Topics
    TopicsStatisticsLast post
    0 Replies 
    665 Views
    by shahan
    0 Replies 
    225 Views
    by shihab
    0 Replies 
    183 Views
    by rafique
    0 Replies 
    164 Views
    by KOUSHIK2424
    0 Replies 
    121 Views
    by Islammahabul47