Let's Discuss!

বিষয় ভিত্তিক প্রস্তুতি : বাংলদেশ ও বিশ্ব, দৈনন্দিন বিজ্ঞান এবং সাম্প্রতিক ঘটনাবলি
#3427
পৃথিবীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড
১৬ আগষ্ট ২০২০ যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত ডেথ ভ্যালি ন্যাশনাল পার্কের ফার্নেস ক্রিক নামের জায়গাতে ৫৪.৪॰সেলসিয়াস বা ১৩০॰ ফারেনহাইট তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত নির্ভরযোগ্য যে রেকর্ড রাখা আছে সে অনুযায়ী এটাই পৃথিবীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড । পৃথিবীতে এর আগে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৫৪॰ সেলসিয়াস বা ১২৯.২॰ ফারেনহাইট। ২০১৩ সালে ডেথ ভ্যালিতেই সর্বশেষ তাপমাত্রার রেকর্ড করা হয়। ১৯১৩ সালে ডেথ ভ্যালিতেই সর্বোচ্চ ৫৬.৭॰ সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল বলে জানা গেলেও এখনো তা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। অনেক আবহাওয়াবিদ এর মতে, ঐ সময় তাপমাত্রা পরিমাপে ভুল ছিল। বেশিরভাগ আবহাওয়াবীদ ১৯১৩ সালের ঐ রেকর্ড মানতে নারাজ। জাতিসংঘের অঙ্গ সংগঠন বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা অবশ্য এখনও ১৯১৩ সালের ঐ তাপমাত্রাকে সর্বোচ্চ বলে হিসাব রেখেছেন। কিন্তু বিজ্ঞানী আবহাওয়াবিদ ও বিশেষজ্ঞদের সন্দেহ ও সংশয় বিবেচনায় যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ১৬ আগষ্ট ২০২০ বিকেলে এ গ্রহে ছিল এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।
২০১০-১৯
পৃথিবীর ইতিহাসে উষ্ণতম দশক
পৃথিবীর ইতিহাসে ২০১০-১৯ ছিল সবচেয়ে উষ্ণতম দশক। ১২ আগষ্ট ২০২০ প্রকাশিত এক রিপোর্টে জলবায়ু পরিবর্তনে এ মারাত্মক বাস্তবতা প্রকাশ পায়। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ন্যাশনাল ওশিয়ানিক অ্যান্ড অ্যাটমোস্ফেরিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সেন্টার্স ফর এনভায়রনমেন্টাল ইনফরমেশনের নেতৃত্বে এ প্রতিবেদন তৈরি হয়। এতে অংশ নেন ৬০ দেশের ৫২০ জনেরও বেশী বিজ্ঞানী। রিপোর্টে বলা হয় ১৯৮০ সাল থেকে প্রত্যেক দশকে আগের দশকের চেয়ে উষ্ণ ছিল। ২০১০-১৯ শতকের উষ্ণতা ২০০০-২০০৯ দশকের চেয়ে ০.২॰সেলসিয়াস বেড়েছে। গ্রিন হাউজ গ্যাসের প্রভাবে উষ্ণতা ১৯৯০ সালের চেয়ে ৪৫% বেড়ে গেছে বলে লক্ষ্য করেন গবেষকরা। গাড়ি, বিমান ও ধোঁয়া নির্গমনকারী কারখানাগুলো বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে এ বসবাস যোগ্য গ্রহকে আরো উষ্ণ করে তুলছে বলে জানান তারা।
দ্রুত গলছে আর্কটিকের বরফ
জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে বরফ গলার যে মডেল আশঙ্কা করা হয়েছিল আর্কটিক সাগরের বরফ তার চেয়েও অনেক দ্রুত গলছে। ইউনিভার্সিটি অব কোপেনহেগেন ১৮ আগষ্ট ২০২০ এ জানায় । এখন পর্যন্ত জলবায়ু পরিবর্তনের মডেলগুলো আর্কটিক পমাত্রার একটি ধীর ও অবিচলিত বৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছে। তবে নতুন গবেষণায় দেখা গেছে, উষ্ণায়ন আরো দ্রুত গতিতে ঘটছে। আর্কটিক মহাসাগরে তাপমাত্রা অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে যা আগের যুগে দেখা গেছে। আইস কোর বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গ্রিনল্যান্ডের বরফস্তরে ৪০-১০০ বছরে কয়েক দফায় ১০-২০॰ তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। সম্প্রতি ব্রিটেনের ইউনিভর্সিটি অব লিঙ্কন তাদের গবেষণায় জানায়, শুধু গ্রিনল্যান্ডের বরফ গলার কারণেই ২১০০ সাল নাগাদ বিশ্বে সমুদ্রস্তরের উচ্চতা ১০-১২ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পাবে।

    ১. ডিজিটাল প্রতারণার সাজা ৫ বছর বা ৫ লক্ষ বা উভয় […]

    ১. বিশ্বে চার ধরনের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা চালু রয়েছে[…]

    ১. ব্রিটিশ আমলে বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা কমিশন গঠিত[…]

    যদি স্বাধীনতা বলতে কিছু বোঝায়, তবে এর অর্থ লোকেরা[…]