Let's Discuss!

বিগত নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নসমুহ ও সমাধান
#2101
১২তম বি.সি.এস এর প্রশ্নোত্তর ও ব্যাখ্যা (দৈনন্দিন বিজ্ঞান)

১. শহরের রাস্তায় ট্রাফিক পুলিশ সাধারণত সাদা ছাতা ও সাদা জামা ব্যবহার করে থাকে কারণ-
- তাপ বিকিরণ থেকে বাঁচার জন্য
ব্যাখ্যাঃ সাদা কাপড়ের তাপ শোষণ ও বিকিরণ করার ক্ষমতা কম। এজন্য তাপ বিকিরণ থেকে বাঁচার জন্য শহরের রাস্তায় ট্রাফিক পুলিশ সাধারণত সাদা ছাতা ও সাদা জামা ব্যবহার করে থাকেন।
২. আকাশে বিজলী চমকায়-
- মেঘের অসংখ্য পানি ও বরফ কণার মধ্যে চার্জ সঞ্চিত হলে
৩. অধিকাংশ ফটোকপি মেশিন কাজ করে--
- পোলারয়েড ফটোগ্রাফি পদ্ধতিতে
ব্যাখ্যাঃ ‘পোলারয়েড’ হল বিশেষভাবে তৈরি স্বচ্ছ মাধ্যম। এর মধ্যে দিয়ে সাধারণ আলো পাঠালে সমবর্তিত আলো পাওয়া যায়। এ ধর্মকে কাজে লাগিয়ে ফটোকপি মেশিন তৈরি করা হয়।
৪. যে সর্বোচ্চ শ্রুতি সীমার উপরে মানুষ বধির হতে পারে তা হচ্ছে-
- ১০৫ ডিবি
ব্যাখ্যাঃ বর্তমান যান্ত্রিক সভ্যতার যুগে শব্দ দূষণ পরিবেশের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরূপ। শব্দ দূষণের ফলে স্বাভাবিক স্নায়ু-সংযোগ ব্যাহত হয়, কাজে মনোযোগ কমে আসে, মেজাজ খিটখিটে হয়, পরিপাক যন্ত্রের কাজে বিশৃংখলা দেখা দেয়, ফলে আলসার ও অন্যান্য আন্ত্রিক পীড়ায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়, শ্রবণশক্তি ধীরে ধীরে হ্রাস পায়। শব্দের তীক্ষ্ণতা ১০৫ ডিবি উপরে মানুষ বধির হয়ে যেতে পারে।
৫. কোন বস্তুকে পানিতে সম্পূর্ণভাবে ডুবালে পানিতে যেখানে এটি রাখা যায় সেখানেই এটি থাকে কারণ--
- বস্তুর ঘনত্ব পানির ঘনত্বের সমান
ব্যাখ্যাঃ বস্তুর দ্বারা অপসারিত তরলের ওজন বস্তুর ওজনের সমান হলে বস্তুটি ঐ তরলে সম্পূর্ণ নিমজ্জিত অবস্থায় ভাসবে। এক্ষেত্রে বস্তুর ঘনত্ব তরলের ঘনত্বের সমান হয়।
৬. পানিতে নৌকার বৈঠা বাঁকা দেখা যাওয়ার কারণ, আলোর--
- প্রতিসরণ
ব্যাখ্যাঃ আলোকরশ্মি এক স্বচ্ছ মাধ্যম থেকে অন্য স্বচ্ছ মাধ্যমে যাওয়ার সময় মাধ্যমদ্বয়ের বিভেদ তলে তীর্যকভাবে আপতিত আলোকরশ্মির দিক পরিবর্তন করার ঘটনাকে আলোর প্রতিসরণ বলে। আলোকরশ্মি হালকা মাধ্যম থেকে ঘন মাধ্যমে প্রবেশ করলে প্রতিসরিত রশ্মি অভিলম্ব থেকে দূরে সরে যায়। আলোর প্রতিসরণের জন্যই পানিতে নৌকার বৈঠা বাঁকা দেখা যায়।
৭. রান্না করার হাড়ি-পাতিল সাধারণত অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি হয়। এর প্রধান কারণ--
- এতে দ্রুত তাপ সঞ্চারিত হয়ে খাদ্যদ্রব্য তাড়াতাড়ি সিদ্ধ হয়
ব্যাখ্যাঃ অ্যালুমিনিয়াম তাপের সুপরিবাহী বলে অ্যালুমিনিয়ামের পাত্রে তাপ প্রয়োগ করলে ঐ তাপ সহজেই পাত্রের সমগ্র অংশে ছড়িয়ে পড়ে। এতে খাদ্যদ্রব্য তাড়াতাড়ি সিদ্ধ হয়।
৮. রিমোট সেলিং বা দূর অনুধাবন বলতে বিশেষভাবে বুঝায়ঃ
- উপগ্রহের সাহায্যে দূর থেকে ভূমণ্ডলের অবলোকন
ব্যাখ্যাঃ উপগ্রহের সাহায্যে অতিশাব্দিক তরঙ্গ বা আল্ট্রাসাউন্ড ওয়েভের মাধ্যমে কোন বস্তুকে স্ক্যান করে যে সংকেত পাওয়া যায় তা ব্যবহার করে ফটো তোলার মাধ্যমে ভূমণ্ডল অবলোকন করা হয়।
৯. পালতোলা নৌকা সম্পূর্ণ অন্য দিকের বাতাসকেও এর সম্মুখ গতিতে ব্যবহার করতে পারে কারণ-
- সম্মুখ অভিমুখে বলের উপাংশটিকে কার্যকর রাখা হয়
১০. সাধারণ স্টোরেজ ব্যাটারীতে সীসার ইলেকট্রোডের সঙ্গে যে তরলটি ব্যবহৃত হয় তা হলো--
- সালফিউরিক এসিড
ব্যাখ্যাঃ স্টোরেজ ব্যাটারিতে অ্যানোড ও ক্যাথোড হিসাবে যথাক্রমে তামার ও দস্তার পাত ব্যবহার করা হয়। অ্যানোড ও ক্যাথোড সালফিউরিক এসিডে ডুবানো থাকে।
১১. ফুলানো বেলুনের মুখ ছেড়ে দিলে বাতাস বেরিয়ে যাবার সঙ্গে সঙ্গে বেলুনটি ছুটে যায়। কোন ইঞ্জিনের নীতির সংগে এর মিল আছে?
- রকেট ইঞ্জিন
ব্যাখ্যাঃ ফুলানো বেলুনের মুখ ছেড়ে দিলে বাতাস বেড়িয়ে যাবার সংঙ্গে সংঙ্গে বেলুনটি ছুটে যায়। এটি নিউটনের গতির তৃতীয় সূত্রের একটি বাস্তুবিক উদাহরণ। এই নীতির উপর ভিত্তি করেই রকেট ইঞ্জিন তৈরি করা হয়েছে। রকেটের পিছনের অংশ দিয়ে প্রচণ্ড বেগে গ্যাস নির্গত হয় ফলে এর বিপরীত ক্রিয়ায় রকেটটি প্রচণ্ড বেগে সামনের দিকে এগিয়ে যায়।
১২. ফিউশন প্রক্রিয়ায়---
- একাধিক পরমাণু যুক্ত করে নতুন পরমাণু গঠন করে
ব্যাখ্যাঃ যে প্রক্রিয়ায় একাধিক হাল্কা পরমাণুর নিউক্লিয়াস একত্রিত হয়ে অপেক্ষাকৃত ভারী পরমাণুর নিউক্লিয়াস গঠন করে এবং অত্যাধিক শক্তি নির্গত হয়, তাকে ফিউশন বলে।
১৩. প্রবল জোয়ারের কারণ, এ সময়-
- সূর্য, চন্দ্র ও পৃথিবী এক সরলরেখায় থাকে
ব্যাখ্যাঃ চন্দ্র-সূর্যের আকর্ষণ শক্তি এবং পৃথিবীর কেন্দ্রাতিগ শক্তি প্রভৃতির কারণে। সমুদ্রের পানি নির্দিষ্ট সময় অন্তর এক জায়গায় ফুলে ওঠে, আবার অন্য জায়গায় নেমে যায়। সমুদ্র পানির এভাবে ফুলে ওঠাকে জোয়ার এবং নেমে যাওয়াকে ভাঁটা বলে। পূর্ণিমা ও অমাবস্যার তিথিতে পৃথিবী, চন্দ্র ও সূর্য প্রায় একই সরললেখায় অবস্থান করে। চন্দ্র ও সূর্যের মিলিত আকর্ষণের জন্য জোয়ারের পানি খুব বেশি ফুলে ওঠে। ফলে প্রবল জোয়ারের সৃষ্টি হয়, একে তেজ কটাল বলে।
১৪. নিচের কোন উক্তিটি সঠিক?
- বায়ু একটি মিশ্র পদার্থ
ব্যাখ্যাঃ দুই বা ততোধিক পদার্থকে যে কোন অনুপাতে একত্রে মিশালে যদি তারা নিজ নিজ ধর্ম বজায় রেখে পাশাপাশি অবস্থান করে, তবে উক্ত সমাবেশকে মিশ্রণ বলা হয়। বায়ু একটি মিশ্র পদার্থ কারণ বায়ুতে উপাদান মৌলসমূহ যেমনঃ নাইট্রোজেন, অক্সিজেন, কার্বনডাইঅক্সাইড ইত্যাদি নিজ নিজ ধর্ম বজায় রেখে পাশাপাশি অবস্থান করে।
১৫. যে বায়ু সর্বদাই উচ্চচাপ অঞ্চল থেকে নিম্নচাপ অঞ্চলের দিকে প্রবাহিত হয়, তাকে বলা হয়-
- নিয়ত বায়ু
ব্যাখ্যাঃ যে বায়ু পৃথিবীর চাপ বলয়গুলো দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়ে সারা বছর একই দিকে প্রবাহিত হয়, তাকে নিয়ত বায়ু বলে। নিয়ত বায়ু তিন প্রকার: অয়ন বায়ু, প্রত্যয়ন বায়ু এবং মেরু বায়ু। যে বায়ু ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে এর দিক পরিবর্তন করে, তাকে মৌসুমী বায়ু বলে।
    Similar Topics
    TopicsStatisticsLast post
    0 Replies 
    620 Views
    by rafique
    0 Replies 
    472 Views
    by tumpa
    0 Replies 
    466 Views
    by tumpa
    0 Replies 
    438 Views
    by shohag
    0 Replies 
    209 Views
    by 96tipu